Bike Loan

TVS Apache RR 310: দেখলে চোখের পলক পড়বে না! স্পোর্টি লুক সহ দুর্ধর্ষ গতি, ঘরে তুলুন মাত্র 6 টাকার কিস্তিতে

Aindrila Dhani

Published on:

tvs-apache-rr-310-emi-plan

TVS Apache RR 310: বর্তমান সময়ে TVS একটি নামকরা টু-হুইলার ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি। দুর্দান্ত লুক আর দারুন মাইলেজের মাধ্যমে যুবকদের মন জিতে নিতে এসেছে TVS Apache RR 310। ইতিমধ্যে এই বাইকটি ভারতে লঞ্চ হয়েছে। এতে মাস্কুলার বডি ওয়ার্ক রাখা হয়েছে।

আপনি কি একটি স্টাইলিশ বাইক কেনার কথা ভাবছেন? এই সেগমেন্টে সব থেকে জনপ্রিয় মডেল হল TVS Apache RR 310। সম্প্রতি এই বাইকের আপডেটেড ভার্সন বাজারে লাঞ্চ করেছে কোম্পানি। লুকের দিক থেকে KTM আর Kawasaki-কেও হার মানিয়ে দেবে এই বাইক। এতে আপনি 5টি রাইডিং মোড আর ক্রুজ কন্ট্রোলের মতো সুবিধা পেয়ে যাবেন।

TVS Apache RR 310: ইঞ্জিন

সবার প্রথমেই আমরা এই বাইকের ইঞ্জিন সম্পর্কে কথা বলব। এতে আপনি শক্তিশালী ইঞ্জিন পেয়ে যাবেন। TVS Apache RR 310 বাইকে 312cc-র 4 স্ট্রোক, সিঙ্গেল সিলিন্ডার, লিকুইড কুল্ড ইঞ্জিন ব্যবহার করা হয়েছে। এই ইঞ্জিন 34 Ps শক্তি ও 27.3 Nm টর্ক উৎপাদন করতে পারে। এই ইঞ্জিনের সাথে 6 স্পিড গিয়ার বক্স রয়েছে। মাইলেজের দিক থেকেও বেশ ভালো এটি। প্রতি লিটারে 55 কিলোমিটার পর্যন্ত মাইলেজ দিতে পারে এই বাইক।

TVS Apache RR 310: ফিচার্স

TVS Apache RR 310-এর লেটেস্ট ফিচার সম্পর্কে জেনে রাখুন। ফিচারের দিক থেকে এই সেগমেন্টের অন্যান্য বাইকগুলিকে হার মানিয়ে দেবে এটি। এর নতুন লুক আর স্টাইল বেশ নজরকাড়া। এতে 17 ইঞ্চির চাকা, ডুয়েল কমপাউন্ড রেডিয়াল টায়ার, 5টি রাইডিং মোড, এলইডি হেডলাইট, এলইডি টেইল লাইট, রোজ কন্ট্রোল, টায়ার প্রেসার মনিটরিং সিস্টেম, 5 ইঞ্চির টিএফটি স্ক্রিন আর বাই-ডাইরেকশনাল কুইক সিফ্টারের মতো ফিচার রয়েছে।

TVS Apache RR 310: দাম

আপনি যদি TVS Apache RR 310 কিনতে চান তাহলে নিকটবর্তী শোরুমে যোগাযোগ করতে পারেন। এই বাইকের দাম কিন্তু খুব একটা বেশি রাখা হয়নি। ভারতীয় মার্কেটে এই বাইকের এক্স শোরুম মূল্য শুরু হচ্ছে 3 লাখ টাকা থেকে। এই বাইকে আপনারা আধুনিক ফিচার, আকর্ষণীয় ডিজাইন আর দুর্দান্ত মাইলেজ পেয়ে যাবেন। আপনি নগদে কিনতে না চাইলে ফাইন্যান্স প্ল্যানেও কিনতে পারবেন। সেক্ষেত্রে আপনাকে মাত্র 30,000 টাকা ডাউন পেমেন্ট করতে হবে। পরবর্তী 48 মাসের জন্য মাত্র 6% সুদের হারে প্রতি মাসে মাত্র 6,610 টাকার ইএমআই দিতে হবে। এই বিষয়ে আপনারা কোম্পানির অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকেও বিস্তারিত জানতে পারবেন।