Bike Loan

ADVERTISEMENT

মারকাটারি লুকে নজর কাড়ল Bajaj Pulsar N160! রয়েছে অবাক করা ফিচার ও শক্তিশালী ইঞ্জিন

ভারতীয় বাজারে টু-হুইলারের চাহিদা চোখে পড়ার মতো। Bajaj ভারতীয় বাজারে লঞ্চ করেছে তাদের নতুন বাইক Bajaj Pulsar N160। এই স্পোর্টি লুকের বাইক আপনাদের বেশ ভালো লাগতে পারে। এতে রয়েছে শক্তিশালী ইঞ্জিন আর আকর্ষণীয় ফিচার। কত দাম এই বাইকের? কেমন দেখতে এই মডেলটি? জেনে নিন আজকের প্রতিবেদনে।

Bajaj Motors ভারতীয় বাজারে স্বনামধন্য এক কোম্পানি। এই কোম্পানির একাধিক মডেল ভারতীয় রাস্তায় আপনারা দেখতে পেয়ে যাবেন। Bajaj Motors এর বাইক গ্রাহকদের বেশ পছন্দের। আবার গ্রাহকদের মন জিততে Bajaj Motors করেছে তাদের নতুন মডেল Bajaj Pulsar N160। এই সিরিজে ইতিমধ্যে একাধিক মডেল রয়েছে। যেগুলি বেশ ভালো মাত্রায় বিক্রি হয়েছে গত ফেব্রুয়ারিতে।

Bajaj Pulsar N160 : ইঞ্জিন ও মাইলেজ

এই বাইকে শক্তিশালী ইঞ্জিন দেওয়া হয়েছে। যার সাহায্যে দুর্দান্ত পারফরমেন্স দেবে Bajaj Pulsar N160। এতে রয়েছে 164.82cc অয়েল কুল্ড, 2 ভালভ, সিঙ্গেল সিলিন্ডার ইঞ্জিন। যা 8,750 rpm -এ 15.8 bhp শক্তি ও 6,500 rpm -এ 14.7 Nm টর্ক উৎপাদন করে। এর সাথে রয়েছে 5 স্পিড ট্রান্সমিশন। এবার মাইলেজের কথা বলতে গেলে, কোম্পানি দাবি করছে Bajaj Pulsar N160 প্রতি লিটারে 55 কিলোমিটার থেকে 59 কিলোমিটার পর্যন্ত মাইলেজ দেবে।

Bajaj Pulsar N160 বাইকের ফিচার্স

Bajaj এর এই মডেলটিতে দুর্দান্ত ফিচারস পেয়ে যাবেন আপনারা। এতে 17 ইঞ্চির টিউবলেস টায়ার রয়েছে। Bajaj Pulsar N160 বাইকে USB চার্জিং পোর্ট, ডিজিটাল ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টার, গিয়ার পজিশন ইন্ডিকেটর ইত্যাদি রয়েছে। আপনারা এই বাইকে সময় দেখতে পাবেন। এছাড়া Bajaj Pulsar N160 বাইকে রয়েছে ডবল চ্যানেল এন্টি লক ব্রেকিং সিস্টেম। এছাড়া সুরক্ষার জন্য দেওয়া হয়েছে ডিস্ক ব্রেক।

Bajaj Pulsar N160 -র স্পেসিফিকেশন ও লুক

Bajaj Pulsar N160 বাইকের লুক খানিকটা Bajaj Pulsar N250-র মতো। এই বাইকে শার্প ট্যাংক এক্সটেনশন, LED টেইল ল্যাম্প, ইঞ্জিন প্রোডাকশনের জন্য আন্ডার বেলি কাউল, মাল্টি স্পোক অ্যালয় হুইল, টুইন LED DRL, প্রজেক্টর হেডল্যাম্প রয়েছে।

Bajaj Pulsar N160 বাইকের দাম

এই বাইকটি ভারতে দুটি ভেরিয়েন্টে আপনারা পেয়ে যাবেন- সিঙ্গেল চ্যানেল ABS আর ডবল চ্যানেল ABS। Bajaj Pulsar N160 বাইকের সিঙ্গেল চ্যানেল ABS ভেরিয়েন্টের এক্স শোরুম দাম 1.23 লাখ টাকা আর ডবল চ্যানেল ABS ভেরিয়েন্টের এক্স শোরুম দাম 1.32 লাখ টাকা।